আপনি বন্ধুদের মন কিভাবে জয় করবেন?

How to win friends and influence people?

আপনি চান আপনার বয়ফ্রেন্ড বা গার্লফ্রেন্ড আপনাকে একটু সময় দিক কিন্তু আপনি যতই বলেন না কেন কে আপনি যতই ঝামেলা করুক না কেন সে আপানাকে কিছুতেই সময় দেয় না। বা আপনি চান আপনার প্যাশন কে ক্যারিয়ার বানাতে আপনার মা বাবা আপনাকে সাপোর্ট করুন ।

কিন্তু আপনি তাদের যতই বুঝান না কেন তারা কিছুতেই আপনাকে সাপোর্ট করতে চায় না।বা হয়ত আপনার ছোট বাচ্চাটি কিছুতেই আপনার কথা শোনে না। যে কারণে দিন দিন পর ওজন কমায় আপনার চিন্তা বাড়ছে কিন্তু আপনি আপনার বাচ্চাকে যতই বলুক না কেন সে কিছুতেই খেতে চায়না কিভাবে আপনি আপনার বাচ্চাকে বলবেন যাতে সে খেতে চায়।

আজকে How to win friends and influence people বই থেকে আপনার সাথে শেয়ার করবো।

যদি আপনি মধু সংগ্রহ করতে চান তাহলে মৌচাকে লাথি মারবেন না:

If you want to gather honey don’t kick over the beehive.

আপনি যখন কারো সঙ্গে রিলেশন শিপে আছেন কিন্তু আপনার বন্ধু বা বান্ধবী আপনাকে কিছুদিন সময় নিচ্ছে না তখন আপনার হাতে দুটো অপশন থাকে এক হল তাকে ক্রিটিসাইজ করার যে যদি তুমি আমাকে সময় না দাও তাহলে কেন রেলেশনশিপ এলে যেটা সবাই করে থাকে ।

আর দ্বিতীয় option হলো তাকে বোঝা যে কেন সে আমাকে সময় দিচ্ছে না। এমন কি করলে সে আমাকে নিজে থেকে সময় দিতে রাজি থাকবে।
এটা হল দীর্ঘমেয়াদি বেস্ট অপশন

একজন সাইকোলজিস্ট তার দীর্ঘদিনের গবেষণার মাধ্যমে এটা প্রমান করেছিলেন যে ভালো কাজের জন্য পুরস্কৃত হওয়া কোন মানুষের থেকে খারাপ কাজের জন্য শাস্তি পাওয়া একজন মানুষের থেকে অনেক দ্রুত শেখে এবং কোন জিনিস খুব সহজেই শিখতে পারে।

আপনি নিজে ভাবুন আপনাকে যখন কেউ সমালোচনা করে বা আপনাকে নিয়ে কোন ভুলত্রুটি বার করে তখন আপনি নিজেকে ডিফেন্স মুডে নিয়ে চলে যান তখন আপনি নানা ভাবে বোঝাতে থাকেন যে কেন তিনি সেই সময় কাজটা করতে বাধ্য হয়েছিলেন।
নিউ ইয়র্কের এক কুখ্যাত জেলখানার ওয়ার্ডেন এক কুখ্যাত জেলখানার ওয়ার্ডেন একবার বলেছিলেন যে জেলখানায় এমন খুব কম আসামি রয়েছেন যারা তাদের কাজের জন্য নিজেকে সত্যিই দোষী বলে মনে করে। ওদের কাছে স্পষ্ট ব্যাখ্যা আছে যে কেন তারা ব্যাংকে ডাকাতি করেছিল ?

তো এরকম কুখ্যাত মানুষেরা যখন নিজেদের কে দোষী বলে মনে করছে না তখন আমাদের মত সাধারন মানুষরা নিজেদের দোষী কখনোই মনে করবেন না। তাই তাদেরকে সমালোচনা করে দোষী প্রমাণ করার মাধ্যমে আপনি তাদের থেকে দূরে সরে যাচ্ছেন এটা একটা বোকামি ছাড়া আর কিছুই না তাই যদি আপনি মধু সংগ্রহ করতে চান তাহলে মৌচাকে লাথি মারবেন না।

আপনার প্রিয়জনদের প্রশংসা করতে শিখুন:

Learn to appreciate your loved ones

আমরা আমাদের প্রিয় জন বন্ধুবান্ধব সবাইকে প্রশংসা করতে ভুলে যায় যেটা একদমই করা উচিত নয় আপনি যদি আপনার বান্ধবীকে বা আপনার প্রিয়জনকে 6 দিন না খাইয়ে রাখেন তাহলে আপনার মনের মধ্যে এটা অবশ্য আসবে যে আপনি crime করছেন।

কিন্তু আপনি প্রিয়জন মানুষকে 6 দিন কেন 6 বছর কোনো প্রশংসা করেননি।তাতে আপনার একবারও মনে হয় না যে আপনি ভুল করছেন।

প্রতিদিন খাবার খাওয়া যেমন স্বাস্থ্যের পক্ষ্যে ভালো।তেমনি প্রিয়জনদের মাঝে মাঝে প্রশংসা করা তাদের সঙ্গে সম্পর্কও মধুর রাখতে কাজে দেয়।

তবে এ ব্যাপারে লক্ষ্য রাখবেন যে আপনি যে প্রশংসা করছেন সেটা যেন অতিরিক্ত ফ্লাটারি না হয়ে যায় কারণ যখন আপনি কাউকে ফ্লাটারি বা এমন প্রশংসা করবেন যেটা সত্যি নয় তাহলে সামনের জন আপনাকে সহজেই ধরে ফেলবে এবং ভাববে যে আপনি তাকে বোকা বানানোর চেষ্টা করছেন আর কেউই বোকা হতে চায় না তাই প্রশংসা করার সময় এটা মনে রাখুন যে আপনার প্রশংসা গুলো যেন সত্যি হয়।

অন্য মানুষের ইচ্ছার সাথে নিজের ইচ্ছার একটা যোগাযোগ করুন

Arouse in the other person and eager want:

আপনি ধরুন স্ট্রবেরি খেতে খুব ভালোবাসেন কিন্তু আপনি যখন মাছ ধরতে যাবেন তখন নিশ্চয়ই স্ট্রবেরী ব্যবহার করবেন না তখন মাছ ধরার জন্য আপনি পোকা ব্যবহার করবেন।
ঠিক তেমনিভাবেই কোন মানুষের আপনার জিনিসের প্রতি আগ্রহ নেই সে যেটা পছন্দ করে তার উপর বেশি আগ্রহ তাই কোন মানুষকে প্রভাবিত করতে গেলে আপনার পছন্দের টপিক বাদ দিয়ে সেই মানুষের কি পছন্দ সেই টপিক নিয়ে আপনাকে আলোচনা করতে হবে।

যেমন আপনি চান আপনার প্যাশন ফলো করতে কিন্তু আপনার বাবা-মা চায় আপনি একটা ভালো করে পড়াশোনা করে ভাল চাকরি-বাকরি করে সিকিউরিটি পেতে এখন আপনি যদি আপনার প্যাশন ফল করতে চান তাহলে আপনার বাবার সঙ্গে ঝামেলা হবে সেইজন্য আপনি তাদের সঙ্গে তাদের পছন্দমতো বিষয় নিয়ে কথা বলুন। এভাবে তারা ভাববে যে আপনি তাদেরকে গুরুত্ব দিচ্ছেন এবং তার মধ্যে থেকেই আপনি নিজের প্যাশন কে ফলো করো।

আর একটা উদাহরন দিলে বুঝতে পারবেন যে আপনি ধরুন চান আপনার ছোট বাচ্চাটির ভালো-মন্দ খায় কিন্তু সে কিছুতেই খেতে চায় না তখন আপনি তাকে বললেন যে দেখো তুমি যদি ভালোভাবে না খাও তাহলে কিন্তু তোমার গায়ের শক্তি বাড়বে না আর স্কুলে কিন্তু ফুটবল টিমের চান্স পাবে না তোমার পাশের বাড়ির বন্ধু কিন্তু ফুটবল টিমের চান্স পেয়ে যাবে এই ভাবে আপনি আপনার বিষয়টি অন্যের বিষয়ের সঙ্গে লিংক করে আপনি যে কোন কাজ করে নিতে পারবেন।

Leave a Comment