ব্লগার অথবা ওয়ার্ডপ্রেস কোনটা নিয়ে আপনার ব্লগিং করা উচিত?

আজকের ব্লগ পোস্টে আমি ব্লগার এবং ওয়ার্ডপ্রেস এর মধ্যে বেসিক ডিফারেন্স এবং আপনার কোন প্ল্যাটফর্ম ইউজ করা উচিত সে ব্যাপারে বিস্তারিত বলবো
তার আগে বলবো অনেকেই ভাবেন যে ব্লক শুরু করার সময় চলে গেছে কিন্তু এটা একদমই সত্যি নয় তুমি আজ একটা ভালো ব্লগ খুলতে পারো এবং সেখান থেকে আয় করতে পারো কিন্তু তুমি কোন প্ল্যাটফর্ম ব্লগ খুলবে সেটা তোমার উপর নির্ভর করছে তুমি এই ব্লগ পোস্ট করছ মানে ব্লগিংকে ক্যারিয়ার হিসেবে নিতে চাইছ তাই আজকের এই ব্লগ পোস্টে ব্লগার এবং ওয়াডপ্রেস এর মধ্যে কোনটা ভালো কোনটা আর কি সুবিধা ও অসুবিধা আলোচনা করব

প্রথমে বলবো ব্লগার কি

ব্লগার হলো একটা ফ্রি প্ল্যাটফর্ম যেটা তৈরি করেছিলেন pyra labs 1999 সালে। পরে গুগোল 2003 সালে এটা নিয়ে নয় তুমি একটা ব্লগ তৈরী করতে পারো যেটা পোস্ট করা থাকবে এবং মেনটেন করা থাকবে গুগল এর দ্বারা গুগলের ফ্রী সাবডোমেইন আছে blogspot.com সেখান থেকে তুমি ফ্রিতে একটা ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবে সে ক্ষেত্রে তোমার ডোমেইন নেম হবে এক্সাম্পেল ডট blogspot.com
এছাড়াও তুমি একটা ডোমেইন নেম কিনতে পারো হাই টপ লেভেল ডোমেইন এবং সেটা ব্লগারের সঙ্গে কানেক্ট করতে পারো ব্লগার অন্যতম সেরা প্ল্যাটফর্ম ফ্রিতে ব্লগ শুরু করার জন্য
এবং ব্লগিং প্লাটফর্ম খুবই সোজা এবং সবকিছু সেট করতে খুবই সহজ এবং ব্লগারে আলাদা করে ssl সার্টিফিকেট ইন্সটল করতে হয় না

তাই ব্লগারে প্রথমদিন থেকেই তুমি ভাল কনটেন্ট পাবলিশ করতে পারবে

এবার আসি ব্লগারের ফিচার নিয়ে

প্রথমেই বলে রাখি ব্লগার যেহেতু গুগলের প্রোডাক্ট তাই তুমি এটা ফ্রি তে ইউজ করতে পারবা ব্লগার একটা খুব ভালো প্ল্যাটফর্ম যারা শুরু করছে ব্লগিং তাদের জন্য এবং যারা এক টাকাও খরচ করতে চায় না তো এবার ব্লগারের কিছু ফিচার নিয়ে আলোচনা করা হবে

১. খুব সহজে ব্যবহার করা যায় অনেকের আছে যাদের টেকনিক্যাল নলেজ খুব কম কিন্তু তারাও ব্লগার প্ল্যাটফর্ম খুব সহজে ব্যবহার করতে পারবে কারণ এর মধ্যে সেটিংস খুবই কম
২. তোমাকে এক টাকা ও ইনভেস্ট করতে হবে না ব্লগার ব্লগ তৈরি করার জন্য কিন্তু তুমি যদি ওয়াডপ্রেস ব্লগ তৈরি করো তাহলে তোমাকে মোটামুটি পাঁচ হাজার টাকা পর্যন্ত খরচ করতে হতে পারে সুতরাং এটা একটা সুবিধা যে তোমার ব্লগারে কোন টাকা খরচ না করে একটা ফ্রিতে ব্লগ তৈরি হয়ে যাচ্ছে

৩. ব্লগারে অনেক ফ্রিতে টেমপ্লেট এবং কাস্টমাইজ অপশন পাওয়া যায় তুমি তোমার ব্লক অনুসারে যেকোনো একটা টেমপ্লেট নিতে পারো এবং তোমার যদি কোডিংয়ে ভালো নলেজ থাকে তাহলে তুমি ব্লক আরো একটা ভালো টেমপ্লেট দারুণভাবে ডিজাইন করতে পারো

৪. ব্লগারে ওয়েবসাইট তৈরি করলে তোমাকে হোস্টিং এর জন্য কোন পয়সা খরচ করতে হবে না গুগোল তার নিজের সার্ভারে তোমার সমস্ত ব্লগ হোস্ট করে রাখবে।
এবং তোমার সাইটে হাজার হাজার ভিজিটর এল সাইট কখনোই ক্লাস করবে না
৫. যখন তুমি ব্লগারে সাইট তৈরি করো তখন একটা ফ্রিতে ব্লকস্পর্ট সাবডোমেইন পাও পরে তুমি তোমার নিজের ডোমেইন কিনলে সেটা সঙ্গে ব্লগার কানেক্ট করতে পারো
৬. সবথেকে ভালো জিনিস ব্লগারে যেটা লক্ষ্য করা যায় সেটা হলো তুমি নতুন কোন পোস্ট পাবলিশ করলে 24 ঘণ্টার মধ্যেই সেটা ইন্ডেক্স হয়ে যায় তার মানে যত তাড়াতাড়ি আর্টিকেল ইন্ডেক্স হবে ততো তাড়াতাড়ি ট্রাফিক আসবে
৭. ব্লগার হল যারা ব্লগিং শুরু করে তাদের জন্য একটা ভালো প্ল্যাটফর্ম যেমন আমি যখন 2018 সালে শুরু করেছিলাম তখন আমিও ফাস্টে ব্লগার ব্লগ খুলে ছিলাম

এবার আসি ওয়ার্ডপ্রেস কি

ওয়াডপ্রেস হলো পৃথিবীর মধ্যে সবথেকে জনপ্রিয় ব্লগিং প্লাটফর্ম এবং এটা 2003 সালে শুরু হয়েছিল প্রথম থেকেই ওয়ার্ডপ্রেস প্রচুর পরিমাণে পেয়েছে এবং এখন বর্তমানে সবথেকে বড় ব্লগিং প্লাটফর্ম পৃথিবীতে

ওয়ার্ডপ্রেস হল বেস্ট কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম এবং ওয়ার্ডপ্রেস হলো একটি ওপেনসোর্স তার মানে যে কোন পাবলিক এটা ব্যবহার করতে পারবে এবং তারা এটাকে তাদের প্রয়োজন অনুসারে মডিফাই করে ইম্প্রুভ করতে পারবে

ওয়ার্ডপ্রেসের দুটো ভার্সন আছে একটা হলেও wordpress.com আর একটা হল wordpress.org wordpress.com ভার্সন টা অনেক রেস্ট্রিকশন আছে এবং এটা ফ্রি কিন্তু wordpress.org হল সেলফ হোস্টেড প্লাটফর্ম।

এবার আসি ওয়ার্ডপ্রেসের ফিচার নিয়ে

ব্লগিং অনেক সহজ হয়ে যায় এবং অনেক কম্ফোর্টেবল হয়ে যায় যখন কেউ ব্লগার ছেড়ে ওয়ার্ডপ্রেসে শিফট করে কারণ ওয়ার্ডপ্রেসে এত অপশন রয়েছে এবং এত সুযোগ-সুবিধা রয়েছে যে একটা খুব প্রিমিয়াম সাইট সহজেই তৈরি করা যায়।
ওয়াডপ্রেস ইনস্টল করার আগে তোমাকে একটা ভালো কোম্পানির হোস্টিং কিনতে হবে এবং হোস্টিং ডোমেইন এর সঙ্গে কানেক্ট করে তারপর ওয়াডপ্রেস ইনস্টল করতে হবে ওয়াডপ্রেস শুধুমাত্র একটা কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট প্ল্যাটফর্ম

১. প্লাগিন :

ওয়ার্ডপ্রেসে এত সংখ্যক ফ্রি প্লাগ-ইন পাওয়া যায় যেগুলো তোমাকে তোমার ওয়েবসাইট সুন্দরভাবে কাস্টমাইজ করতে ভালোভাবে ডিজাইন পড়তে সাহায্য করেন যেটা ইউজারের জন্য সবথেকে ভালো তুমি ওয়াডপ্রেস ফ্রী প্লাগিন এর মাধ্যমে সাইটের এসইও করতে পারবে সাইটের স্পিড কমাতে পারবে সাইটের ভালো ডিজাইন করতে পারবে সাইটে ইমেজ অপটিমাইজ করতে পারবে আরো অনেক কিছু করা যায়

২.থিম :

ওয়ার্ডপ্রেস এর সবচেয়ে ভালো দিক হলো যে এখানে অলরেডি পূর্বে তৈরি এমন হাজার হাজার থিম বা টেমপ্লেট পাওয়া যায় যেগুলো খুব সহজেই আপনি আপনার ওয়েবসাইটে ইন্সটল করে খুব সহজেই কাস্টমাইজ করতে পারবেন আপনার ব্লগিং টপিক এবং আপনি কি কি চান তার উপর নির্ভর করে তোমাকে টেকনিক্যাল নলেজ খুব বেশি থাকতে হবে এমন নয় তোমাকে কোডিং জানতে হবে এমন নয় তুমি খুব সহজেই একটা ভালো সাইট তৈরি করতে পারবে এই সমস্ত প্রিমিয়াম এবং ফ্রি থিম এর মাধ্যমে

৩. ওয়ার্ডপ্রেস এর মাধ্যমে তুমি একের বেশি লেখককে দিয়ে ব্লগ শুরু করতে পারবে তার মানে এটা যে অনেকগুলো লোক একসঙ্গে একটা সিঙ্গেল ওয়েবসাইটে আর্টিকেল লিখতে পারবে কারন এখনকার দিনে ওয়াডপ্রেস ব্লগারদের জন্য সবথেকে বড় কমিউনিটি এখানে একজনের বদলে আরো তিন চারজন একটা সিম্পিল ওয়েবসাইটের জন্য কন্ট্রিবিউট করতে পারে জাস্ট তোমাকে একটা ডিফারেন্ট ইউজার এবং লগিং ডিটেলস তৈরি করতে হবে ব্যাস এটুকুই

ওয়াডপ্রেস দিয়ে তুমি কি কি সাইট বানাতে পারো তো বিজনেস ওয়েবসাইট দ্বিতীয় তৃতীয় হলো ব্লক চতুর্থ হলো পোর্টফোলিও সাইট পঞ্চম প্রশ্ন-উত্তর সাইট ষষ্ঠ হলো ফোরাম সাইট সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট এবং মেম্বারশিপ সাইট কোর্স তৈরি সাইট ফ্রিল্যান্সিং সাইট এরকম আরো অনেক কিছু বানাতে পারবে

তাহলে এবার আসি ব্লগার আর ওয়ার্ডপ্রেস এর মধ্যে যে পার্থক্য আছে সেগুলো নিয়ে

প্রথমে হলো মালিকতা তুমি যখন ব্লগারে একটি ব্লগ খুলবে তখন তোমার ব্লগের মালিক কিন্তু গুগল তার কারণ হচ্ছে তোমার ব্লগের কনটেন্ট কিন্তু গুগলের সার্ভারে হোস্ট হয় এবং তুমি সেই সার্ভার অ্যাক্সেস করতে পারবে না এবং তুমি গুগলের পারমিশন ছাড়া তাদের সার্ভার থেকে কোন কন্টাক্ট ডিলিট করতে পারবে না
অন্যদিকে ওয়ার্ডপ্রেস হলো একটা সেলফ হোস্টেড প্লাটফর্ম এই প্লাটফর্মে তোমার তোমার সম্পূর্ণ অধিকার আছে তোমার ব্লগের উপর তুমি যখন খুশি বন্ধ করতে পারবে যখন খুশি তোমার ডেটা অন্য জায়গায় নিয়ে যেতে পারবে তুমি যখন খুশি তোমার সার্ভার থেকে ডাটা ডিলিট করতে পারবে সুতরাং ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগের মালিক হল তুমি কিন্তু ব্লগার ব্লগের মালিক কিন্তু তুমি নও

এবার আসি ডিজাইন এবং কন্ট্রোল ব্লগার খুবই একটা সিম্পিল প্ল্যাটফর্ম এবং খুবই সিম্পল ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম তুমি খুবই সহজে এটা ম্যানেজ করতে পারবে কিন্তু তুমি বেশি অপশন এখানে পাবে না তোমাকে যে অপশন গুলো দেওয়া আছে সেই অপশন গুলো দিয়ে কাজ করতে হবে তুমি যদি তোমার ব্লগ সাইটে খুব ভালোভাবে লেখ না পড়তে চাও তাহলে তোমাকে খুব ভালোভাবে কোডিংয়ের নলেজ থাকতে হবে

অপরদিকে ওয়ার্ডপ্রেসে তুমি খুবই সহজে একটা প্রফেশনালি ব্লগ তৈরী করতে পারবেন না না পেজ বিল্ডার এবং প্লাগিন আছে তার জন্য তুমি ওয়ার্ডপ্রেসে এক্সট্রা ফিচার এড করতে পারবে এটা একটা ওপেনসোর্স সফটওয়্যার মানে যে কেউ এটা ব্যবহার করতে পারবে এবং মডিফাই করতে পারবে তাই তুমি যদি একটা খুব ভালো ওয়েবসাইট তৈরি করতে চাও তাহলে ওয়ার্ডপ্রেস অবশ্যই বেটার অপশন

বাইরের আউটলুক তুমি ব্লগারের কম সংখ্যক টেমপ্লেট পাবে এবং সেই টেম্পলেটগুলো খুব হাই কোয়ালিটি হবে না অপরদিকে হাজার হাজার টেমপ্লেট যাবে এবং সেগুলো দেখতে খুবই অসাধারণ।
তাই ওয়ার্ডপ্রেসে ওয়েবসাইট গুলো ব্লগারের ওয়েবসাইট অপেক্ষা দেখতে বেশি আকর্ষণীয় এবং সুন্দর হয়।

Leave a Comment